নতুন পোস্ট

ছড়া’ S : আহমেদ সাব্বির

ভোরের কাছে লুকিয়ে রাখি

ছোট্ট আমি অবুঝ কিশোর
সবুজ আমার মন
নীল আকাশে মেঘের দেশে
আমার বিচরণ।

স্বপ্ন ডানায় উড়াল দিতে
নেইকো আমার জুড়ি
সিন্ধু ঈগল শঙ্খ চিলের
সঙ্গে আমি ঘুরি-
বন্ধু আমার রঙধনু আর
রঙ-বেরঙের ঘুড়ি।

ভাসছি আমি হাওয়ার বুকে
এক অজানা মেঘ মুলুকে
পঙ্খিরাজের ডানায় ঢেকে
ছুটছে অবাধ মন
সৃষ্টিবিভোর মনের বনে
বৃষ্টি শিহরণ।

বৃষ্টি যখন রুপোর ফোঁটা
ইলশে গুড়ি গুড়ি
সন্ধ্যা যখন সুবাস ভরা
ফোটায় তারার কুঁড়ি
ঠিক তখন আমাকে ডাক
পাঠায় চাঁদের বুড়ি।

জোছনা ভেজা রুপোর মাঠে
চাঁদের বুড়ি চরকা কাটে
আনমনে নির্জনে
স্বপ্ন জরির সুতোতে সে
নকশি কাঁথা বোনে।

নকশি কাঁথায় কত যে ফুল
হিরের পাখি সোনার পুতুল
কত যে গাছ কত যে মাছ
জলপরীদের মুখ
বুকের ভাঁজে অনন্ত এক
লাল সবুজের সুখ।

স্বপ্ন ডানায় ভেসে ভেসে
ছুটতে থাকা নিরুদ্দেশে
যখন কাটে ঘোর
চোখের পাতায় দেয় যে উঁকি
আলতা রাঙা ভোর।

ভোরের কাছে লুকিয়ে রাখি
সাত জনমের সুখ
ছোট্ট আমি, বুকের আমার
এই বাংলার মুখ


একটি রুমাল


একটি পাখি একটি খাঁচা
স্বপ্ন দেখার নামই বাঁচা
খাঁচার গরাদ ভাঙলো যারা
তাঁদের জন্য অশ্রুধারা ।

হাতের মুঠোয় একটি রুমাল
একটি চিবুক অশ্রুস্নাত
মুক্ত স্বাধীন মাকে পেয়ে
বাঁধভাঙা তার স্বভাবজাত।

পাখি কখন ফিরবে ঘরে
অপেক্ষমান চাতক চখা
লক্ষ কোটি প্রাণের তিনি
প্রাণভোমরা পরাণ সখা

একটি রুমাল মুছতে থাকে
ভালোবাসার অশ্রু ধারা
রুমাল হাতে হাত নাড়ছেন
মহাকালের ধ্রুবতারা।

কিভাবে পড়াশোনায় মনযোগী হবেন? – How It

আমি

বইখাতাকে আঁকড়ে ধরে
ইটপাথরের এই শহরে
উঠছি বেড়ে
গণ্ডি ছেড়ে
বাইরে যাওয়া মানা
আমার তো নেই ডানা; আমি
ছুটবো মাঠে তা না
চিড়িয়াখানায় বন্দী আমি
ছোট্ট মানবছানা।

আমার প্রিয় বিকেলগুলো
বড্ড মলিন, জমছে ধুলো-
ডাংগুলি ফুটবলে
সাঁতারকাটা হয়নি আমার
বেতনা নদীর জলে।

আমায় নিয়ে স্বপ্ন সবার
অনেক দামি যন্ত্র হবার
তাইতো আমার স্বপ্নদেখা
এক্কেবারে বারণ
হতেই হবে সবার চেয়ে
শ্রেষ্ঠ-অসাধারণ।

সাকাল বিকাল সন্ধ্যারাতে
দুধমাখা ভাত আমার পাতে
বন্দি আমি সবার হাতে
রত্ন যেন দামি
এই পৃথিবী ঘুমিয়ে গেলে
নিজকে আমি সাজাই ঢেলে
উড়তে থাকি স্বপ্ন মেলে
খেলনা রোবট আমি।

মা অপরূপ

মা অপরূপ মা অনুপম
মা যে অনন্যা
মা মনিহার মা যে মুকুট
মা যে সুবর্ণা।

মা থাকলে সুখের স্রোতে
দুঃখরা যায় সরে
‘মা’ ডাকলে মুখটা যেন
মধুতে যায় ভরে।

মায়ের হৃদয় মায়ার খনি
ভালোবাসার ঢল
সবচে ভারী মায়ের চোখের
এক বিন্দু জল।

মা হাসলে মুক্তা ঝরে
ফুল ফোটে চাঁদ ওঠে
মায়ের ডাকে সাত আসমান
মা মা বলে ছোটে।

মায়ের আঁচল শীতল ছায়া
শান্ত করে প্রাণ
মা যে আমার নূরের জ্যোতি
জান্নাতি উদ্যান।

সবুজ

জীবনের লক্ষ কি ?
সৃষ্টি না ধ্বংস
আমরা কি কেউ নই
প্রকৃতির অংশ?

গাছ কেটে বন সাফ
নদী ভরি বর্জ্যে
ইট কংক্রিট গড়ে
মাতি ঐশ্বযে।

প্রকৃতির রঙ ছাড়া
এ জীবন শূন্য
সবুজের উচ্ছ্বাসে
প্রাণ পরিপূর্ণ।

আহমেদ সাব্বির

পোস্টটি সাজিয়েছেন : বাবলু ভঞ্জ চৌধুরী ও রনজু আহমেদ

About Mangrove Sahitya

দেখে আসুন

জেলজীবনে বঙ্গবন্ধুর হাতে রান্না খিচুড়ি ফলি মাছের কোপতা

জেলজীবনে বঙ্গবন্ধুর হাতে রান্না খিচুড়ি ফলি মাছের কোপতা ইমরুল ইউসুফ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *